Skip to content

Mezba Uddin Gazi-র ব্লগ

June 1, 2013

আজ ১৪ ই ফেব্রুয়ারী । শুভ্রা রুদ্রের পাশাপাশি হাঁটছে ।রুদ্র ছেলেটা তাকে প্রচণ্ড ভালোবাসে । তবুও অচেনা একজনের কথা বারবার তার মাথায় ঘুরছে । গত একমাস যাবৎ একটি ছেলে প্রতিদিন শুভ্রার 
বারান্দায় একটি করে লাল গোলাপ আর একটি কবিতা রেখে যায় । আজ ঘুম থেকে উঠেই ব্রাশ করতে করতে যখন বারান্দাতে গিয়ে দাঁড়ালো তখন যা দেখল তা দেখেই সেই অচেনা মানুষটির জন্য একটা
কষ্ট অনুভব করছে সে । একটা সাদা কাগজে রক্ত দিয়ে কিছু লিখা যা দূর থেকেই বুঝতে পারলো সে ।কাছে গিয়ে কাগজ টি হাতে নিয়ে কবিতাটি এক নিঃশ্বাসে পড়া শুরু করলো …
তোকে ভালোবাসি রে বোকা ,অনেক ভালোবাসি ;তোকে আকাশ বানিয়ে তোর অস্তিত্তে মিশি;
তোকে মনোরাজ্যের রানী বানিয়ে রাজ্য শাসন করি ;তোকে ভালো বানিয়ে মন্দের সাথে লড়ি ;
তোকে জীবন বানিয়ে মৃত্যু নদীতে সাঁতরে ঘুরি ;তোকে স্বপ্ন বানিয়ে ইচ্ছে লোকে জুড়ি ;
তোকে কাব্য বানিয়ে রাতদিন জপি ;তোকে দেবী বানিয়ে নিজেকে সপি ;
তোকে বৃষ্টি বানিয়ে শেষ রাতে ভিজি ;তোকে রোদ বানিয়ে নির্জন দুপুর সাজি ;
তোকে আশা বানিয়ে হতাশা গুলোকে বিসর্জি;তোকে বিশালতা বানিয়ে একমুঠো আশ্রয় আর্জি;
তোকে বৃক্ষ বানিয়ে তোর ছায়ায় ক্লান্ত আমি ঘুমি;তোকে তীর বানিয়ে ঢেউ হয়ে তোর চরন চুমি ;
তোকে মেঘ বানিয়ে দেই আকাশ নদী পাড়ি;তোকে সুর বানিয়ে হই হৃদয় হরণকারী ;
তোকে রঙধনু বানিয়ে রঙিন স্বপ্ন বুনি;তোকে রাত বানিয়ে অজস্র তারা গুনি ;
তোকে ব্যাথা বানিয়ে পরম যত্নে অনুভবি;তোকে আয়না বানিয়ে হই প্রতিচ্ছবি;
তোকে পথ বানিয়ে অজানাতে মিলি ;তোকে হাসি বানিয়ে কষ্ট গুলোকে ভুলি ;
তোকে দৃষ্টি বানিয়ে রঙ তুলি আঁকি ;তোকে সৃষ্টি বানিয়ে জল কাদা মাখি ;
তোকে পূর্ণিমা বানিয়ে রহস্য দিয়ে ঘিরি ;তোকে শৈশব বানিয়ে স্মৃতির জানালায় ভিরি ;
তোকে কুয়াশা বানিয়ে শিশির ভেজা ঘাসে হাটি;তোকে প্রেম বানিয়ে অলীক কল্পনা আঁটি ………………
ইস!কি ভয়ঙ্কর সুন্দর !
-এই শুভ্রা !চুপ কেন ? কি ভাবছো ?
হঠাৎ রুদ্রের কথায় সম্বিত ফিরে পেল শুভ্রা 
-কিছুনা তো । আচ্ছা তোমাকে একটা প্রশ্ন করি ?
– হুম করো ।
-তুমি আমাকে কেমন ভালোবাসো ?
-অনেক অনেক অনেক ভালোবাসি 
-তোমার থেকে কেউ যদি আমাকে বেশি ভালোবাসে ?
-জীবনেও না । আমার থেকে কেউ তোমাকে বেশি ভালবাসতে পারবেনা 
-ধরো , আসলেই যদি কেউ ভালোবাসে ?
-এই শুভ্রা ! এই ! কি হইছে তোমার ? আমি কিন্তু ভয় পাচ্ছি । আমাকে ছেড়ে কোথাও চলে যাবা নাতো ?
-হা হা হা ! বোকা কোথাকার ! তুমি আমাকে যথেষ্ট ভালোবাসো ।তোমাকে ছেড়ে কখনো কোথাও যাবো না । কিন্তু জানো ! মাঝে মাঝে খুব ভয় হয় । আমাদের ভালোবাসার সম্পর্ক অন্য কারো ভালোবাসার
কাছে যদি হেরে যায় ?
-এই মেয়ে খাম খেয়েলি রাখো । এই তোমার দুচোখ ছুঁয়ে বলছি তা কখনো হতে দেবো না 
পরিশেষ : শুভ্রা আজ সারা রাত ঘুমাতে পারছেনা । কারন রুদ্র যখন তার দুচোখ ছুঁয়ে দিয়েছিল তখন রুদ্রের শার্ট এর হাতা নিচে নেমে ওর কনুইতে গিয়ে ঠেকেছিল । আর তখনই রুদ্রের হাতে ছুরি দিয়ে 
খোঁদাই করা শুভ্রা নামটি দেখতে পেয়েছিল সে । রক্ত দিয়ে লিখা কবিতার উৎস তখনই উদ্ঘাটন হলো ………
( বিঃদ্রঃ কবিতাটি আমার লিখা “তোকে ” নামক কবিতা থেকে নেয়া হয়েছে )
(মেজবা,১ই জুন ,২০১৩

Advertisements
Leave a Comment

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: